🎬 সিনেমা – Haider
🌐 জানরা – Drama, Action, Crime
🕰 রিলিজ – 2014

২০১৪ সালে ভিশাল ভার্দোয়াজ পরিচালত Haider হচ্ছে ইংরেজি সাহিত্যের সর্বকালের সেরা লেখক উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের “Hamlet” নাটকের আলোকে তৈরি। আর এই কাজটা খুব সুন্দর নিখুত ভাবে উপস্থাপন করেছেন পরিচালক ভিশাল ভার্দোয়াজ। কাশ্মীরে চিত্রায়িত এই সিনেমাটি মূলত সেখানকার মুসলিম সম্প্রদায়ের দূরবস্থা এবং অসহায়ত্বকে রিপ্রেজেন্ট করে। এই রিভেঞ্জ ট্রাজেডিতে দেখা যায় গল্পের মূখ্য চরিত্র হায়দারে অভিনয় করা শাহীদ কাপুরকে বাবার মৃত্যুর প্রতিশোধ নেবার জন্য ছটফট করতে থাকা একজন যুবকের চরিত্রে। Hamlet এর আলোকে যেহেতু তৈরি তাই এই সিনেমায়ও দেখা যায় হায়দারের চাচার সঙ্গে হায়দারের মা অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে।

“জাবতাক হাম আপনে ইনতেকাম সে আজাদ নেহি হো জাতে, তাবতাক কোয়ি আজাদী হামে আজাদ নেহি কার সাকতি”

-Haider

বলিউডের অন্যতম আন্ডাররেটেড অভিনেতা শাহীদ কাপুরের এখন পর্যন্ত ক্যারিয়ার সেরা পারফর্মেন্স হচ্ছে তার হায়দার চরিত্র। এমনকি হায়দার চরিত্রে অভিনয় কিরে শাহীদ জিতে নিয়েছিলো সেবারের সেরা অভিনেতার ফিল্মফেয়ার এওয়ার্ড টিও। সবসময়ই চকলেট বয় ইমেজে পরিচিত শাহীদকে মূলত রোমান্টিক সিনেমাতেই বেশি দেখা যেতো এবং এমনটাই ধারণা করা হতো যে শাহীদ শুধুমাত্র রোমান্টিক সিনেমার জন্যই ঠিকঠাক অভিনেতা। তবে ভিশাল ভার্দোয়াজ’ই হয়ত সেই পরিচালক যিনি শাহীদের মধ্যে এমন কিছু দেখতে পেয়েছিলেন যা অন্য পরিচালকদের নজরে আসেনি। ২০০৯ এ “কামিনে” সিনেমায় তিনি শাহীদকে নিয়ে প্রমান করেন যে শাহীদ শুধু রোমান্টিক সিনেমার অভিনেতাই নয় বরং তাকে দিয়ে আরো অনেক কিছু সম্ভব। এরপর ২০১৪ তে আবার শাহীদ কে হায়দার চরিত্রে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করলেন যা কিনা করেছে তাকে এবং শাহীদকে উভয়কেই ক্রিটিকস মহলে দারুন প্রসংশিত। তাই ফিল্মফেয়ারের এওয়ার্ড হাতে শাহীদ সেদিন তার ক্যারিয়ারের পিছে ভিশাল ভার্দোয়াজের অবদানকে স্মরন করতেও ভুলেনি।

2
CINEMA ESCAPIST

যেহেতু, “Haider” চলচ্চিত্রটি একটি ড্রামা বেইজ চলচ্চিত্র তাই সিনেমার গতি বেশ ধীর। প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়াংশে স্ক্রীনে আরেক বলিউড কিংবদন্তি ইরফান খানের উপস্থিতি আর শাহীদ কাপুরের চোখ কপালে উঠে যাবার মতো অভিনয় দর্শকের চোখকে স্ক্রীনবন্দি করে রাখবে। এছাড়া হায়দারের মায়ের চরিত্রে বলিউডের অন্যতম পরিচিত অভিনেত্রী তাবু, হায়দারের চাচা চরিত্রে “কে কে মেনন” আর হিরোইন হিসেবে শ্রদ্ধা কাপুর প্রত্যেকেই নিজের কাজগুলো খুব ভালোভাবেই করেছে। আর তাই বেশ সাপোর্টিং অ্যাক্টর মেইল এবং ফিমেইলের ফিল্মফেয়ার এওয়ার্ড জিতে নিয়েছিলো যথাক্রমে “কে কে মেনন” ও “তাবু”।

অভিনয় এবং পরিচালনার পাশাপাশি এই সিনেমার সিনেম্যাটোগ্রাফিও ছিলো দারুন। তার সাথে সিনেমার গানগুলোর ছিলো সিনেমার গল্পের সাথে ভালো এটাচমেন্ট। ” বিসমিল” গানটাতে শাহীদ কাপুরের পারফর্মেন্স তো পুরো দশে দশ।

আইএমডিবির হিসাবে বলিউডের অলটাইম সিনেমা গুলোর মধ্যে Haider এর অবস্থান ৯৯ নম্বরে আর স্কোর ১০ এর মধ্যে ৮.১। রোটেন টমেটোজে ৮৫% স্কোরের পাশাপাশি ৯১ শতাংশ গুগল ব্যবহারকারীদের পছন্দের তালিকায় এই সিনেমা যেখানে গুগোল অডিয়েন্স রেটিং আছে পাঁচের এর মধ্যে ঠিক সাড়ে চার।