মুভি দেখার প্লাটফর্ম হিসেবে, আমার কাছে সব থেকে বিরক্তিকর হলো নেটফ্লিক্সের মত অনলাইন স্ট্রিমিংগুলো।
হ্যাঁ, এটাই সত্য!
বর্তমান প্রজন্মকে যদি প্রশ্ন করা হয়, আপনি কোথায় নতুন সিনেমা দেখতে পছন্দ করবেন? সিনেমা হলে নাকি নেটফ্লিক্স এর মত অনলাইন স্ট্রিমিংগুলোতে? হয়ত নেটফ্লিক্সের মত অনলাইন স্ট্রিমিং ভিউয়ার দের সংখ্যাই বেশি হবে। হয়তো এর কারণ হবে, খরচ কম, যখন খুশি তখন দেখা যায়, যাতায়াত ও অন্যান্য বাড়তি ঝামেলা নেই।
সিনেমা হলে নতুন সিনেমা আসতেছে, এটা জানা মাত্রই টিকিট কিনার যে এক হিড়িক কাজ করতো এবং লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কেনার যে আনন্দ, তা আপনি নেটফ্লিক্সে মাসিক পে করেও পাবেন না!মুভির শুরুতে বড় পর্দায় দেশের পতাকা ভেসে উঠা ও জাতীয় সঙ্গীতের মিউজিক বেজে উঠার মুহূর্তে সম্মান জানানোর জন্য তাড়াহুড়ো করে চেয়ার থেকে দাঁড়িয়ে যাওয়ার মর্ম নেটফ্লিক্সে মুভি দেখা জাতি নিশ্চয়ই অনুভব করতে পারবে না।সিনেমা হলে বড় রুপালি পর্দায় ও অসংখ্য সিটে একসাথে অনেক চেনা অচেনা মানুষ পাশাপাশি বসে মুভি দেখার মজা যেমন আলাদা, তেমনি টানটান উত্তেজনা মুহূর্তে হঠাৎ আকাঙ্ক্ষিত চরিত্রটি বা ঘটনাটিকে বড় পর্দায় দেখতে পাওয়ার পর উৎসুক জনতার চিৎকার আর শীশ দেয়ার মত আনন্দটা কখনও নেটফ্লিক্সে একাকি দেখে সেটা ফেসবুকে রিভিউ দিয়ে প্রকাশ করা যাবে না!সিনেমা হলের ১০ মিনিটের বিরতিতে তাড়াহুড়ো করে ক্যান্টিনে গিয়ে কার আগে কে পপকর্ণ ও কোক কিনে ফেরত এসে সিটে বসবে অথবা কিনার মুহূর্তে লম্বা সিরিয়ালে থাকার কারণে শো এর কিছুদূর দেখা মিস হয়ে গেলো কিনা, এমন টেনশনে থাকার আনন্দ অন্তত নেটফ্লিক্সে মুভি দেখার ক্ষেত্রে আজকের প্রজন্মের কাজ করে না!আপনার গার্লফ্রেন্ড বা স্ত্রী, সিনেমা হলে নিয়ে যাওয়ার জন্য যে এক তাড়া দিত বা আগ্রহ আপনার নিকট প্রকাশ করতো এক সময়, আজ নেটফ্লিক্সের জগতে এসে সেই তাড়া খাওয়ার আনন্দটা আপনি আর পাবেন না!রাতের শেষ শো টা শেষ করে, বাসায় ফিরার আগে এক সাথে ডিনার করার আনন্দটাও বুঝি আর নেটফ্লিক্সে মুভি দেখা শেষ করে পাচ্ছেন না।সিনেমা হলে মুভি দেখে, একসাথে বাসায় ফিরার সময় সিনেমা হলের সঙ্গীর সাথে, কোন দৃশ্যটার জন্য অনুভূতি কেমন ছিল, মুভিটার কোন দিক ভালো, কোন দিক খারাপ, এইসব নিয়ে তর্ক-বিতর্ক বা ঝগড়া করে বাসায় ফিরার মত আনন্দ নেটফ্লিক্স আপনাকে দিবে না।
আমি কথাগুলো, নেটফ্লিক্সের মত অনলাইন স্ট্রিমিংগুলার সমালোচনার জন্য বলি নি, বরং বললাম, সিনেমা হলে মুভি দেখার ক্ষুদ্র কিছু আমার অনুভূতিগুলো! অনেকেই হয়তো বলবেন, নেটফ্লিক্সের ব্যাপার আর সিনেমা হল এক নয়; দুইটা আলাদা প্রকৃতির! কিন্তু একবার ভাবুন তো, সারা বিশ্বের বর্তমানে যা পরিস্থিতি হচ্ছে, অদুর ভবিষ্যতে তো সিনেমা হলের জায়গা গুলো নেটফ্লিক্সের মত অনলাইন স্ট্রিমিংগুলো যে নিয়ে নিবে না শীঘ্রই তা কি আপনি নিশ্চয়তা দিতে পারেন? আপনার-আমার চাহিদাই তা পরিবর্তন করবে!আমার শুধু আফসোস, হয়তো ভবিষ্যত প্রজন্মরা আমাদের মত সিনেমা হলে মুভি দেখার মত আনন্দ আর আবেগটা কখনই অনুভব করতে পারবে না!