61 / 100
  • অভিনয়:  জায়দিপ আলাওাক্ত,নিরাজ কাবি,অভিষেক ব্যানার্জি, গুল পানাগ, জাগজিত সান্ধু, স্বস্তিকা মুখার্জি সহ আরও অনেকে.
  • পরিচালক: অভিনাশ অরুণ & প্রতিস রয়
  • রাইটার: সুদীপ শর্মা,সাগর হাভেলি, হার্দিক মেহটা, গুঞ্জিত চোপড়া।
  • ছবির ধরন:
  • সময়সীমা: সিজন ১
  • প্লাটফর্মঃ এমাজন প্রাইম ভিডিও।
  • Wiki Details

গতকাল (১৫ই মে) রিলিজ হইসে আমাজন প্রাইম এ।জানতাম না কিন্তু অনুরাগ কাশাপ এর টুইট দেখে দেখতে বসে গেসিলাম কালকে রাতে।এক বারে ভোর ৪ টায় দেখা শেষ করে তারপর উঠসি।

কি ছিল ভাই এইটা।কাহিনী,প্লট বা অভিনয় কিংবা ব্যাক গ্রাউন্ড স্কোর কোন দিকে কমতি নাই।কোন আজাইরা শট নাই,হুদাই কাহিনী বাড়ানোর তাড়াহুড়া নাই। প্রথম সিজন হিসেবে ক্যারেক্টার ডেভেলপমেন্ট অনেক ভালো। আর ২/১ জন বাদে সবার অভিনয় দারুণ।হিন্দি মুভির মত আলগা ফালতু মেলো ড্রামা নাই।

কাহিনী সংক্ষেপঃ দিল্লি পুলিস এর হেডকোয়াটার এর টিম দ্বারা সঞ্জয় মেহেরা ( নিরাজ কাবি) নামক নামকরা টিভি নিউজ চ্যানেল এর সিইও ও খ্যাতিনামা সাংবাদিক কে খুন করার চেষ্টার জন্য ৪ জন কে গ্রেপ্তার করার মধ্যদিয়ে কাহিনী শুরু।সঞ্জয় মেহেরা, ওই একই সময় এ যাকে আবার ওই টিভি চ্যানেল এর মালিক ৩০০০ কোটি রুপির এক রোড কন্ট্রাক্ট এর জন্য ফায়ার করতে চায়,আবার এই সঞ্জয় মেহেরা বছর ৩ আগে এক বিরোধী দলের জাদারেল রাজনীতিবিদ এর ক্যারিয়ার শেষ করে দিয়েছিলেন।

ঘটনা ক্রমে এই আটেম্পট টু মার্ডার এর কেস এসে পরে সারাজীবন স্টাগ্রল করা এক পরাজিত বাবা ইন্সপেক্টর হাতিরাম চৌধুরী (জায়দিপ আলাওাক্ত) আর নবিশ ইমরান আন্সারির(ইশ্বাক সিং) উপর ।এর পর কাহিনী শুরু। একে একে একেকটা টুইস্ট আর ক্লাইমেক্স আসতে থাকে।শেষ এপিসোড এর ২০ মিনিট আগ পর্যন্ত ধারনা করতে পারবেন না আসলে কি হতে যাচ্ছে। কে আসল ভিকটিম, কে আসল কিলার,আর কে বেনিফিসারি।

প্রথমে একটু স্লো লাগতে পারে কিন্তু ক্যারেক্টার গুলা আস্তে আস্তে খুলবে আর কাহিনী টা আরও জম জমাট হবে

জায়দিপ আলাওাক্ত(শেষের বানানটা ভুল হতে পারে) অনেক গুলা মুভি তে সাইড ক্যারেক্টার হিসেবে দেখসি।বার্ড অফ ব্লাড এ আইএসআই অফিসার হিসেবে যথেষ্ট নজরে আসছিলো। কিন্তু এই পাতাল লোক এর প্রাইম ক্যারেক্টারে ফাটাইয়া দিসে।অল্প ক্ষমতাওয়ালা পরাজিত পুলিস বাবার চরিত্রে অনেক ফুটিয়ে তুলসে।শেষের ক্লাইমেক্স গুলাতে বেশি দারুণ করসে।

নিরাজ কবিকে তো ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বকশি থেকে চিনি। জাত অভিনেতা। তালবার এ ভিকটিম মেয়ের বাবার চরিত্রে কিংবা দ্যা ফাইনাল কল এর ভি কৃষনামূর্তি তে অভিনয় দেখাইসেন উনি। আর সেক্রেড গেমস এর পারুলকাড় এর কথা নাই বা বলি।

গুল পালাগ এর চরিত্র ছোট কিন্তু উনার যতটুকি করার তা ভালো মতই করসে। ত্যাগী চরিত্রে অভিষেক ব্যানার্জি দিল্লি থিয়েটার থেকে আসা জিনিশ।যারা শকারস, বিসাত প্লিজ, পাঞ্ছায়েত সিরিজ গুলা দেখেসেন তা জানেন উনি চিজ।

সাব ইন্সপেক্টর চরিত্রে ইশ্বাক সিং, সঞ্জিভ মেহেরার বউ এর চরিতে ছোটবেলার ক্রাশ স্বস্তিকা কিংবা এংরি ইয়াংমান জাগজিত সবাই ভালো করসে।

মাইরেম্বাম চরিত্রে মেরি ল্যংদহ যে ভেল্কি দেখাইসে দারুণ। কাস্টিং এ ভালোই করসে এন্ড সবাই যার যার ক্যারেক্টার প্লেয়েড প্রিটি ওয়েল। হতেই হবে কাস্টিং ডিরেক্টর টিম এ যে ছিলেন অভিষেক ব্যানার্জি

ডিরেক্টর ২ জন থেকে প্রতিস রয় এর আগে “পারি” সহ ৪ টা কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে।অভিনাশ এর তাও না। সে হিসেবে উনারা নতুন আর দারুণ করসে। ভাবতে ভালো লাগতেসে নেটফ্লিক্স কে পাল্লা দিয়ে ইন্দিয়াতে আমাজন ও কন্টেন্ট বানাইতেসে। আমাদের দেশে যে এমন কবে হবে 1f641🙁 তো দেরী না করে এই quarantain এ দেখতে পারেন পাতাল লোক।